জোড়া কালী – তমাল দাশগুপ্ত

জোড়া কালী।

অনেক জায়গাতেই দেখা যায়, মা কালীর দুটি মন্দির কাছাকাছি থাকে, এবং একজনকে বড় মা আরেকজনকে ছোট মা আখ্যা দেওয়া হয়। এরকম জোড়া কালী সম্পর্কে অনেকেই অবহিত থাকবেন। এই যেমন তারকেশ্বরের কাছে বালিগোড়ি গ্রামে বড় মা এবং ছোট মা, দুজন কালী পূজিত হন। আখ্যা বা সম্বোধন অনেক সময় একটু এদিক ওদিক হতে পারে, যেমন, বড় বোন ছোট বোন বা বড় গিন্নি ছোট গিন্নি বা বড় কালী ছোট কালী – কিন্তু মূল বিষয়টি এক থাকে, একই স্থানে কাছাকাছি অঞ্চলে দুজন স্থানেশ্বরী অধিষ্ঠাত্রী মায়ের পুজো। আমরা জেনে আনন্দিত হই যে এই ঐতিহ্যের পেছনে তন্ত্রের ও মাতৃকা উপাসনার একটি মৌলিক তত্ত্ব আছে। সে সম্পর্কে আজ জানব আমরা।

প্রাচীন ভারতে হরপ্পা সভ্যতায় নিশা ও ঊষা পূজিত ছিলেন, কৃষ্ণী বা কালো মেয়ে যিনি রাত্রি এবং গৌরবর্ণা ঊষা যিনি দশদিকে কিরণ বিস্তার করেন বলে দশভুজা আখ্যা পেয়েছেন। এঁরাই আজকের বাঙালির প্রাণের কালী দুর্গা। এঁরা হরপ্পা সভ্যতায় তন্ত্রে পূজিত এবং এঁরা বৈদিকদের মধ্যেও পরিচিত। নিশা ও ঊষার মধ্যে পরস্পর ভগ্নী সম্পর্ক কল্পিত হয়েছে ঋগ্বেদে। এঁরা একজন সৃষ্টির সূচনাকালে এবং অন্যজন সৃষ্টির বিস্তার ও স্ফুরণকালে অধিষ্ঠান করেন।

ঊষা আসলে নিশারই পরিবর্তিত রূপ। দুর্গা ও কালী অভিন্ন, কেবল প্রকাশের বিভিন্নতা। এজন্যই একাধিক পুরাণে দেখবেন পার্বতী কালীর কথা বলা আছে যিনি পার্বতী গৌরীর আরেক রূপ। এবং যেভাবে দুই বোন আসলে অভিন্নতার সূচক (কারণ দুজনে একই রক্ত), এভাবেই দুই বোনের অভিন্নতা কিন্তু ভিন্ন প্রকাশের আদর্শে দুই বোন হিসেবে মাতৃকার উপাসনা। প্রসঙ্গত এর আগে একদিন আমরা সপ্তমাতৃকা প্রসঙ্গে আলোচনা করেছিলাম, তাঁরাও এই একই তত্ত্বের সমতুল্য, এছাড়া ছয়জন কৃত্তিকার তত্ত্বেও অনুরূপ অভিন্নতা-বিভিন্নতা আদর্শ ছিল।

কাজেই আজকে বাংলার বিভিন্ন অঞ্চলে যে জোড়া কালীর পুজো হয়, তা অত্যন্ত প্রাচীন এক প্রথা। হরপ্পা সভ্যতা থেকে গত পাঁচ হাজার বছর ধরে আমাদের মধ্যে জগন্মাতার দুই রূপ, দুই বোন আকারে পূজিত হন। যাঁরা বাংলার কোনও অঞ্চলে দুই বোন কালীর অথবা সেই অঞ্চলের একাধিক কালীমূর্তির একত্রিত ভাসান শোভাযাত্রা দর্শনের সৌভাগ্য লাভ করেছেন তাঁরা জানবেন, এ এক অদ্ভুত রোমাঞ্চ। খোলা আকাশের তলায় দুই বোন কালী যখন রাজরাজেশ্বরীর মত গমন করেন, মায়ের সন্তান বাঙালিরা তাঁদের কাঁধে করে নিয়ে যায় জয়ধ্বনি দিতে দিতে, আবহমান তন্ত্রের জীবনদর্শন ও চর্যা উদ্ভাসিত হয়, সে বড় সুন্দর অভিজ্ঞতা।

জয় মা কালী।

© কালীক্ষেত্র আন্দোলন

ছবিতে হুগলি জেলার তারকেশ্বরে বালিগোড়ি গ্রামের বড় মা ও ছোট মা।

কালীক্ষেত্র আন্দোলন ফেসবুক পেজ, দুই এপ্রিল দুহাজার তেইশ

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s