মা মনসার পুজোয় মাতৃভক্ত যে সুফল পান – তমাল দাশগুপ্ত

মা মনসার পুজোয় মাতৃভক্ত যে সুফলের অধিকারী হন।

মনসা পুজো তন্ত্রের গণধর্মী চরিত্রের অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রকাশ। অনেকেই মনসা পুজো করেন, গৃহে গৃহে মনসা পুজো হয় বাংলা জুড়ে। শ্রাবণ মাসের শুক্ল পঞ্চমী তিথি অর্থাৎ নাগপঞ্চমী তো বটেই, এবং শ্রাবণ সংক্রান্তির দিনেও অবশ্যই, এছাড়া সমগ্র শ্রাবণ মাস জুড়েই মা মনসা পূজিত হন। ভাদ্র মাস শুরু হয়েছে, এই ভাদ্র মাসেও কিন্তু মা মনসার পুজো করা হয়, এবং ভাদ্র সংক্রান্তির দিন শহরাঞ্চলে বিশ্বকর্মা পূজিত হলেও বাংলার অনেক গ্রামে এই দিনেও মা মনসার পুজো হয়।

আজ আমরা মা মনসার পুজোর সুফল সম্পর্কে জানব সংক্ষেপে।

১. মা মনসা জগদকারণ আদিমাতা রূপে চার সন্তান সহচর সহ পূজ্য, সেজন্য মনসা পুজোয় দুর্গাপুজোর ফল লাভ হয়।

২. মা মনসা মৃত্যুভয় হরণ করেন। তিনি জগতের যাবতীয় বিষ থেকে তাঁর ভক্তদের রক্ষা করেন, বলা বাহুল্য। মা মনসা তাঁর ভক্তদ্রোহীদের সমূলে ধ্বংসও করেন।

৩. তন্ত্রের চূড়ান্ত গন্তব্য হল কুণ্ডলিনী শক্তির উত্থান। এই কুণ্ডলিনী সর্পরূপে বিরাজ করেন। এঁর কোনও প্রতিমা হয় না, কিন্তু মা মনসাকে পুজো করলে কুণ্ডলিনীশক্তি দর্শনের সুফল হয়।

৪. মনসা পুজোয় বলি দিলে ধন, যশ এবং সন্তানাদি লাভ হয় (ব্রহ্মবৈবর্তপুরাণ দ্রষ্টব্য)।

© তমাল দাশগুপ্ত

পালযুগের গৌড়বঙ্গে একাদশ-দ্বাদশ শতকে উৎকীর্ণ মনসা মূর্তি। বর্তমান অবস্থান রুবিন মিউজিয়াম অভ আর্ট।

জয় মা মনসা। জয় জয় মা।

তমাল দাশগুপ্ত ফেসবুক পেজ, উনিশ আগস্ট দুহাজার বাইশ

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s